ভ্রমন গল্প

পরীকুন্ড ঝর্ণা

ঝর্না কে না ভালোবাসে? যদি আপনিও ঝর্ণা ভালোবাসেন তাহলে পরীকুন্ড ঝর্ণা আপনার জন্য একেবারে সঠিক একটি গন্তব্য। বাংলাদেশের সিলেট বিভাগের অন্তর্গত মৌলভীবাজার জেলার বড়লেখা উপজেলার কাঁঠালতলিতে অবস্থিত এই পরীকুণ্ড জলপ্রপাতটি। পরিচিত জলপ্রপাত মাধবকুণ্ড এর খানিকটা পাশেই এর অবস্থান। পরীকুন্ডে যেতে হলে প্রথমেই আপনাকে আসতে হবে সিলেট, মৌলভীবাজার কিংবা কুলাউড়া। বাসে করে আসতে পারেন এখানে। ঢাকা হতে সরাসরি বাস যোগাযোগ রয়েছে এসব স্থানে অথবা ট্রেনে করে যেতে পারেন সিলেট বা কুলাউড়া। সবচাইতে সহজ পথটি হল ট্রেনে করে কুলাউড়া আসা। ট্রেনে কুলাউড়া ষ্টেশনে নেমে সিএনজি ভাড়া করে সরাসরি মাধবকুণ্ড পৌছাতে পারেন। এতে আপনার খরচ ও পরিশ্রম, দুটোই কম হবে। কুলাউড়ায় নেমে বাসে করেও যেতে পারেন। সে ক্ষেত্রে আপনাকে কাঁঠালতলী বাজারে নামতে হবে। সেখান থেকে অটোতে মাধবকুণ্ডের দূরত্ব হবে ৮ কিলোমিটার। এখানে পৌঁছে টিকেট কেটে মাধবকুণ্ড এলাকায় প্রবেশ করে সোজা মাধবকুণ্ড জলপ্রপাতে যাওয়া যাবে।  সেখান থেকে পরীকুন্ড কাছেই। মাধবকুণ্ড থেকে পরীকুণ্ড সামান্য পথ হলেও পুরো পথটিই যেতে হয় পাথরের উপর দিয়ে বয়ে যাওয়া ঝিরিপথ হয়ে। সাবধানে না এগোলে পিছলে যাবার আশঙ্কা থাকে অনেক বেশি। তাই ভাল গ্রিপের জুতা থাকাটা বিশেষ জরুরী। পথটি খুব বিপজ্জনক না হলেও মাধবকুণ্ড থেকে পরীকুণ্ড যাওয়ার এই পথটি কোনও একজন গাইডের সহায়তায় যাওয়াটাই ভালো। বর্ষার মৌসুমে পরীকুণ্ড জলপ্রপাতের সৌন্দর্য মাধবকুণ্ডের চাইতেও অনেক বেশি। বিশেষ করে যারা এই দুটি ঝর্ণাই দেখেছেন তাদের ভালোবাসাটা পরীকুণ্ডের প্রতিই একটু বেশি। সবুজে ঘেরা উঁচু পাহাড়ের গা বেয়ে এখানে নেমে আসে স্ফটিক স্বচ্ছ জলধারা। পরীকুণ্ডে জলধারাটি মাধবকুণ্ডের মতো অতটা খাড়া নিচে নেমে আসেনি। তবে এখানে জলধারার বিস্তৃতি মাধবকুণ্ডের চাইতে বেশি বলেই তা অন্যরকম এক সৌন্দর্য তৈরি করে।